Alzheimer's disease রোগ - লক্ষণ ও কারণ

Alzheimer's disease হল একটি স্নায়বিক ব্যাধি যার কারণে মস্তিষ্ক ধীরে ধীরে সঙ্কুচিত হয় এবং মস্তিষ্কের কোষ(brain cells) গুলো মারা যায়। আলঝাইমার রোগ হল ডিমেনশিয়ার সবচেয়ে সাধারণ কারণ যার ফলে মানুষের চিন্তাভাবনা, আচরণ এবং সামাজিক দক্ষতার ক্রমাগত হ্রাস পায় এবং একজন ব্যক্তি স্বাধীনভাবে কাজ করার ক্ষমতাকে প্রভাবিত করে বা কমিয়ে দেয়। 

রোগের প্রাথমিক লক্ষণ গুলোর মধ্যে অন্যতম হল সাম্প্রতিক ঘটনা বা কথোপকথন ভুলে যাওয়া। আলঝেইমার রোগের তীব্রতা বাড়ার সাথে সাথে রোগে আক্রান্ত একজন ব্যক্তির স্মৃতিশক্তি মারাত্মক ভাবে দুর্বলতা হয়ে যায় এবং দৈনন্দিন কাজগুলো করার ক্ষমতা কমে যায়।

Alzheimer's disease লক্ষনঃ

স্মৃতিশক্তি হ্রাস:

  • আলঝেইমার রোগের প্রধান লক্ষণ যেমন সাম্প্রতিক ঘটনা বা কথোপকথন মনে রাখতে অসুবিধা বা ভুলে যাওয়া। ধীরে ধীরে স্মৃতিশক্তি দুর্বল হয়ে যাওয়া বা গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ভুলে যাওয়া বা মনে রাখতে পারে না। 
  • প্রত্যেকেরই মাঝে মাঝে কমবেশি স্মৃতিশক্তি লোপ পায়, কিন্তু আলঝেইমার রোগের সাথে সম্পর্কিত ব্যক্তির স্মৃতিশক্তি ক্রামাগত হ্রাস পেতে থাকে এবং খারাপ হয়, যা কর্মক্ষেত্রে বা বাড়িতে কাজ করার ক্ষমতাকে প্রভাবিত করে। 
  • একই কথা এবং প্রশ্ন বারবার বলে বা জিজ্ঞাসা করে। যেমন- খাবার খাওয়ার পরেও আবার জিজ্ঞাসা করে তাকে খাবার দেওয়ার জন্য। 
  • কারো সাথে দেখা হওয়া বা কথোপকথন, অ্যাপয়েন্টমেন্ট, তারিখ, ঘটনা ভুলে যান এবং পরে মনে করতে পারে না। 
  • বিভিন্ন প্রয়োজনীয় জিনিস বা বস্তু কোথায় রেখেছে তা ভুলে যায়। যেমন- ঘরের চাবি, ম্যানিব্যাগ, টাকা, ডাইরি ইত্যাদি। 
  • অনেক ক্ষেত্রে পরিচিত জায়গা ভুলে যায় বা চিনতে পারে না। যেমন- নামাজ বা বাজারে গেলে বাসায় আসার রাস্তা ভুলে যায়, বাসার ওয়াসরুম কোথায় ভুলে যায় ইত্যাদি। • পরিবারের সদস্যদের নাম এবং দৈনন্দিন জিনিসপত্র ভুলে যান। 
  • বস্তু শনাক্ত করতে, চিন্তাভাবনা প্রকাশ করতে বা কথোপকথনে অংশ নিতে সঠিক শব্দ খুঁজে পেতে সমস্যা হয়। 

Thinking and reasoning (চিন্তা এবং যুক্তি) সমস্যাঃ 

Alzheimer's disease কারণে মনোযোগ এবং চিন্তা করতে সমস্যা হয় বিশেষ করে abstract concepts গুলোতে সমস্যা হয়।Multitask, টাকা পয়সার হিসাব বা আর্থিক ব্যবস্থাপনা, চেকবুক এবং সময়মত বিল পরিশোধ করতে সমস্যা হয় এবং অনেক ক্ষেত্রে আক্রান্ত একজন ব্যক্তি সংখ্যা চিনতে এবং গণনা করতে সমস্যা হতে পারে। 

Making judgments and decisions (বিচার বিবেচনা এবং সিদ্ধান্ত গ্রহণ সমস্যা) : 

দৈনন্দিন পরিস্থিতিতে যুক্তিসঙ্গত সিদ্ধান্ত এবং বিচার করার ক্ষমতা হ্রাস পায়। উদাহরণ স্বরূপ, একজন ব্যক্তি যে পরিস্থিতিতে যে পোশাক ঠিক নয় সেখানে সেই পোশাক পড়তে পারে। যেমন গ্রমের সময় শীতের পোশাক বা শীতের সময় গরমের পোশাক পরতে পারে, চুলায় খাবার জ্বলে যাওয়া, খাবারে মসলা কম বা বেশি দিতে পারে, বা চায়ে চিনি কম বা বেশি দিতে পারে ইত্যাদি সমস্যা হয়। 

ব্যক্তিত্ব এবং আচরণে পরিবর্তন: 

Alzheimer's disease মস্তিষ্কের পরিবর্তনগুলি সাথে সাথে মেজাজ এবং আচরণকে প্রভাবিত করে।যেমন-বিষণ্ণতা, উদাসীনতা, একা থাকা, মেজাজ পরিবর্তন- হঠাৎ রাগ করা, কান্না করা, মন খারাপ থাকা, অন্যের প্রতি অবিশ্বাস, বিরক্তি এবং আক্রমণাত্মকতা, ঘুমের অভ্যাসের পরিবর্তন, বিভ্রান্তি যেমন বিশ্বাস করে যে কিছু চুরি করা হয়েছে। 

পরিকল্পনা করা এবং পরিচিত কাজ সম্পাদন করতে সমস্যা হয়ঃ যেমন খাবারের পরিকল্পনা করা এবং রান্না করা ভুলে যায়, একটি প্রিয় খেলা খেলা যা আগে পারতে তা ভুলে যায় বা পারে না, কীভাবে গোসল করতে হয় তা অনেক ক্ষেত্রে ভুলে যায় বা সমস্যা হয়।

কারণসমূহ: 

আলঝাইমার রোগের সঠিক কারণগুলি এখনো সম্পূর্ণরূপে চিহিন্ত করা যায় নি। তবে মস্তিষ্কের প্রোটিনগুলি স্বাভাবিকভাবে কাজ করতে ব্যর্থ হয়, যা মস্তিষ্কের কোষগুলির (নিউরন) কাজকে ব্যাহত করে যার ফলে নিউরন ক্ষতিগ্রস্ত হয়, একে অপরের সাথে সংযোগ হারায় এবং অবশেষে নিউরন মারা যায়।

বিজ্ঞানীরা মনে করেন রোগটি জেনেটিক, জীবনধারা এবং পরিবেশগত কারণগুলির সংমিশ্রণ দ্বারা সৃষ্ট হয় যা সময়ের সাথে সাথে মস্তিষ্ককে প্রভাবিত করে। ঝুঁকির কারণ: বয়সঃ বয়স বৃদ্ধি আলঝেইমার রোগের জন্য সবচেয়ে পরিচিত ঝুঁকির কারণ। Alzheimer's disease স্বাভাবিক বার্ধক্যের একটি অংশ নয়, তবে বয়স বাড়ার সাথে সাথে আলঝেইমার রোগ হওয়ার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পায়। 

পারিবারিক ইতিহাস এবং জেনেটিক্স: 

আপনার Alzheimer's disease হওয়ার ঝুঁকি কিছুটা বেশি যদি কোনো প্রথম ডিগ্রি আত্মীয় বা আপনার পিতা-মাতা বা ভাইবোনের এই রোগ থাকে। পরিবারের মধ্যে Alzheimer's disease বেশিরভাগ জেনেটিক হয়ে থাকে থাকে। আবার পরিবারে নেই তার পরেও জেনেটিক মিউটেশন কারনেও হতে পারে। 

ডাউন সিনড্রোমঃ 

ডাউন সিনড্রোমে আক্রান্ত অনেকেরই আলঝেইমার রোগ হয়। এটি সম্ভবত ক্রোমোজোম 21-এর তিনটি কপি থাকার সাথে সম্পর্কিত এবং পরবর্তীতে প্রোটিনের জন্য জিনের তিনটি কপি যা বিটা-অ্যামাইলয়েড তৈরির দিকে পরিচালিত করে। আল্জ্হেইমের লক্ষণ এবং উপসর্গগুলি সাধারণ জনগণের তুলনায় ডাউন সিনড্রোমে আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে 10 থেকে 20 বছর আগে দেখা যায়।

সেক্সঃ 

পুরুষ এবং মহিলাদের মধ্যে ঝুঁকির মধ্যে সামান্য পার্থক্য রয়েছে বলে মনে হয়, তবে সামগ্রিকভাবে, এই রোগে আক্রান্ত মহিলাদের সংখ্যা বেশি কারণ তারা সাধারণত পুরুষদের তুলনায় বেশি দিন বাঁচে। 

মৃদু জ্ঞানীয় প্রতিবন্ধকতাঃ 

মৃদু জ্ঞানীয় প্রতিবন্ধকতা (MCI) হল স্মৃতিশক্তি বা অন্যান্য চিন্তার দক্ষতার হ্রাস যা একজন ব্যক্তিকে সামাজিক বা কাজের পরিবেশে কাজ করতে বাধা দেয় না। মাথায় আঘাতঃ যাদের মাথায় গুরুতর আঘাত লেগেছে তাদের আলঝেইমার রোগের ঝুঁকি বেশি। 

বেশ কয়েকটি বড় গবেষণায় দেখা গেছে যে 50 বছর বা তার বেশি বয়সী ব্যক্তিদের মধ্যে যাদের ট্রমাটিক ব্রেইন ইনজুরি (TBI), ডিমেনশিয়া এবং আলঝেইমার রোগের ঝুঁকি বেড়েছে। আরও গুরুতর এবং একাধিক টিবিআই আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে ঝুঁকি বৃদ্ধি পায়। 

কিছু গবেষণা ইঙ্গিত দেয় যে TBI হওয়ার পর প্রথম ছয় মাস থেকে দুই বছরের মধ্যে ঝুঁকি সবচেয়ে বেশি হতে পারে। 

বায়ু দূষণঃ 

প্রাণীদের উপর গবেষণায় দেখা গেছে যে বায়ু দূষণের কণা স্নায়ুতন্ত্রের ক্ষয়কে ত্বরান্বিত করতে পারে। বায়ু বিশেষ করে ট্রাফিক নিষ্কাশন এবং পোড়ানো কাঠ। অতিরিক্ত অ্যালকোহল 

সেবনঃ 

প্রচুর পরিমাণে অ্যালকোহল পান করা মস্তিষ্কের পরিবর্তন ঘটায় বলে জানা গেছে যা ডিমেনশিয়ার ঝুঁকির বাড়ায়। ঘুমের সমস্যা বা ধরণ গবেষণায় দেখা গেছে যে ঘুমের সমস্যা যেমন ঘুমাতে অসুবিধা হওয়া বা রাত জেগে থাকা আলঝেইমার রোগের ঝুঁকির সাথে যুক্ত। 

জীবনধারা এবং হার্টের স্বাস্থ্যঃ

গবেষণায় দেখা গেছে যে হৃদরোগের সাথে সম্পর্কিত একই ঝুঁকির কারণগুলিও আলঝেইমার রোগের ঝুঁকি বাড়াতে পারে। এর মধ্যে রয়েছে: অনুশীলনের অভাব, স্থূলতা, ধূমপান বা সেকেন্ডহ্যান্ড ধূমপানের সংস্পর্শে আসা, উচ্চ্ রক্তচাপ, উচ্চ কলেস্টেরল, ডায়াবেটিস। 

অতএব, জীবনযাত্রার অভ্যাস পরিবর্তন করা আপনার ঝুঁকিকে কিছুটা হলেও পরিবর্তন করতে পারে। উদাহরণস্বরূপ, নিয়মিত ব্যায়াম এবং ফল এবং শাকসবজি সমৃদ্ধ একটি স্বাস্থ্যকর, কম চর্বিযুক্ত খাদ্য এই রোগের ঝুঁকি হ্রাসের করতে পারে। 

আজীবন শিক্ষা এবং সামাজিক কর্মকাণ্ডঃ মানসিক এবং সামাজিকভাবে উদ্দীপক ক্রিয়াকলাপে জড়িত থাকা এবং আলঝেইমার রোগের ঝুঁকি হ্রাসের মধ্যে একটি সম্পর্ক রয়েছে।

যারা আজীবন শিক্ষা মানসিক এবং সামাজিকভাবে উদ্দীপক ক্রিয়াকলাপে জড়িত থাকে তাদের মধ্যে ঝুঁকি কম থাকে। 

চিকিৎসাঃ 

এই রোগের জন্য সম্বলিত চিকিৎসা পদ্ধতি প্রয়োজন। যেখানে বিভিন্ন ধরনের প্রফেশনাল অন্তর্ভুক্ত থাকবে। যেমন- 1. Neurologist 2. Psychiatrist 3. Clinical Psychologist/Neuropsychologist 4. Geriatrician যদি অন্য কোন শারীরিক সমস্যা থাকে তাহলে অন্যান্য প্রফেশনালদের সাথে যোগাযোগ করতে হবে। 

Writer: Md.Ashadujjaman Mondol MPhil Researcher (Part II) Department of Clinical Psychology University of Dhaka.
একটি মন্তব্য পোস্ট করুন (0)
নবীনতর পূর্বতন